করোনা সত্যি, নাকি ব্যবসা?

করোনা সত্যি, নাকি ব্যবসা?

নজরবন্দি ব্যুরো : রাষ্ট্র সাধারণ মানুষকে গত চারমাস ঘর বন্দি করে রেখে বোকা বানাচ্ছে? নাকি ফেঁসে গেছে? গত চারমাসে WHO প্রতি নিয়ত তাদের বক্তব‍্য পাল্টাচ্ছে কাদের ইশারায়? মানুষকে এতো ভয় দেখানো বা বিভ্রান্ত করার কারণ কী? এতে কাদের সুবিধা হচ্ছে? গত চারমাসে ঘরবন্দি থেকে যা উপলব্ধি করেছি তা আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম। নোবেল করোনা ভাইরাস একটি RNA ভাইরাস বলেই জানি, RNA ভাইরাসের আবার ভ‍্যাকসিন? আজ অবধি কটা বেরিয়েছে? এটা দেখছি, করোনার কোন ওষুধ নেই, অথচ বেসরকারি হাসপাতালের বিল বারো লাখ, কি এতো দূর্মুল‍্য ওষুধ, যে তার খরচ বারো লাখ?

আরও পড়ুনঃ দেশে অব্যাহত করোনা ঝড়, আক্রান্তের সংখ্যা ২০ লাখ ছুঁই ছুঁই

আমার পরিচিত করোনা হয়ে হসপিটালে ভর্তি হলো, সাত দিন পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলো, জিজ্ঞেস করলাম কতো খরচ হলো? বললো দু-লাখ পঞ্চাশ, যে রোগের কোনো ওষুধ নেই, সেই রোগ সারাতে কী ওষুধ দিলো? যার বিল হলো দু-লাখ পঞ্চাশ? গ‍্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি, এখন যে ব‍্যাক্তি করোনা টেস্ট করাবে, তাকে পজেটিভ বলা হবে, লক্ষন থাকলে বলবে সিম্পটোমেটিক আর লক্ষন না থাকলে বলবে অ‍্যাসিম্পটোমেটিক, কদিন আগেও সিম্পটমের কথা বলা হচ্ছিল এবং সিম্পটম নেই মানে নেগেটিভ, কিন্তু তাতে সুবিধা হচ্ছিল না, তাই ভাষা পরিবর্তন করে সাধারণ মানুষকে গুলিয়ে দেওয়া হলো আমি ডাক্তার বা ভাইরোলজিস্ট নই, জিজ্ঞেস করছি মাত্র ! যে ভাইরাস মিউটেশনের মাধ‍্যমে অনবরত তার চরিত্র পরিবর্তন করে যাচ্ছে, তাকে মারার জন‍্য অস্ত্র তৈরি হবে? সত‍্যিই হয় কি আদৌ ? নাকি সবটাই লোক দেখানো? সবটাই মিথ‍্যে?

ধরা যাক করোনা একটা বাঘ, তাকে মারার জন‍্য তৈরি হলো একটা রাইফেল, কিন্তু ততক্ষণে বাঘ নিজেকে পরিবর্তন করে হয়ে গেছে ‘মশা’ কিভাবে মশা ঐ রাইফেলে মরবে?এবার ধরা যাক মশা মারবার জন‍্য তৈরি হল এক মস্কিউটো কিলিং ব‍্যাট, মশা তার শরীরকে এবার পরিবর্তন করে নিলো হাতিতে এবার ঐ মশা মারার ব‍্যাটে হাতি মরবে? নাটক, মানুষকে ঘর বন্দি করে রেখে রাষ্ট্র সাধারণ মানুষের সাথে প্ররোচনা করছে চীনের কোনো খবর বা ছবি ওদের দেশের বাইরে আসে না, ওদের দেশে গুগল নেই, কিন্তু জানুয়ারী থেকে মার্চের মধ‍্যে ফেসবুকে শুধু চিনের মৃত‍্যুর ভিডিও ছড়াছড়ি, কোথা থেকে এলো, কারা সোশ‍্যাল মিডিয়ায় আপলোড করলো? এখন আসছে না কেন? একবার ভেবেছেন? কিন্তু এই সুযোগে কোটি কোটি টেস্টিং কিড আর ভেন্টিলেটর সারা পৃথিবীতে রপ্তানি করে দিলো চীন, এতো কম সময়ে এতো উৎপাদন করল কি করে? পরিকল্পনা মাফিক এসব তাদের যদি মজুতই না থাকবে? কি? ব‍্যাপারটা সুপরিকল্পিত মনে হচ্ছে?

লকডাউনের আগেই কি ভাবে রিলায়েন্স বা মন্টে কার্লোর হাতে ইম্পোর্ট হয়ে পৌঁছালো N95 মাস্ক তৈরির উচ্চ উৎপাদন ক্ষমতাযুক্ত অত‍্যাধুনিক অটোমেটিক মেশিন? যারা মাস্ক তৈরিই করতো না কোনদিন, তারাও উৎপাদন শুরু করে দিলো রাষ্ট্র যখন ঘোষনা করলো, N95 ব‍্যবহার করলে সাধারন মানুষের করোনার বিপদ বাড়বে, তখন যা ব‍্যবসা করার, তারা করে নিয়েছে, তাহলে রাষ্ট্র কাদের স্বার্থ চরিতার্থ করতে এতোদিন চুপ ছিলো? পাল্স অস্কিমিটারের নাম কখনো শুনেছেন? ব‍্যাপক বিক্রি করোনা আক্রান্ত হলে ওটা আঙুলে চেপে ধরে বুঝতে হবে আপনার শরীরে অক্সিজন ঠিক আছে কীনা, 94 এর নীচে নামতে দেওয়া যাবে না, তাহলেই ভোগে । বিল গেটস্ সহ অনেক ধনকুবের আজ ওষুধ ব‍্যবসার সাথে যুক্ত, এমনকি আমাদের ICMR এর পার্টনারও আছেন অনেক ধনকুবের, নীতা আম্বানি প্রতিষেধক বেরোনোর সঙ্গে সঙ্গেই তা প্রতিটি ভারতবাসীর কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন‍্য প্রতিশ্রুতি করে ফেললেন, কোনো স্বার্থ ছাড়াই? আচ্ছা, সুইডেন সহ পৃথিবীর 21 টা দেশ  লকডাউন করেনি।

তাদের দেশে করোনায় আক্রান্ত বা মৃত‍্যুর পরিসংখ‍্যানটা একবার দেখেছেন কেউ? মিডিয়া সেটা প্রচার করছে না, অথচ তাদের মৃত‍্যুর হার লকডাউন করা দেশের মতোই, ভিয়েতনামে করোনায় কোনো মৃত‍্যুই নেই, কিন্তু কেন? তাহলে কি লাভ হলো আমাদের লকডাউন করে? কার বা কাদের লাভের উদ্দেশ‍্যে এই লকডাউন? এরই মধ‍্যে ফুলে ফেঁপে উঠলো কিছু বড় কোম্পানির স‍্যানিটাইজার এর ব‍্যবসা, যে জিনিসের সাথে সাধারন মানুষের পরিচয়ই ছিলো না, হুড়হুড় করে তৈরি হয়ে গেলো কোটি কোটি PPE !! কিন্তু এই ভারতেই টিবি রোগে এখনো বছরে 5 লাখ মানুষের মৃত‍্যু হয়, তার প্রচার নেই, শুধুমাত্র মানুষকে ভয় দেখানোই মিডিয়ার প্রধান কাজ এখন । বিশ্বাস করুন, এখন কোন মৃত‍্যুর গন্ধ আর পাচ্ছি না! পাচ্ছি শুধু কিছু রাষ্ট্র আর খুব বড়ো বড়ো ধনকুবেরদের ব‍্যবসার গন্ধ, যারা আমাদের সঞ্চালক ,সাধারন মানুষ আমরা, অর্থাৎ আদার ব‍্যাপারী। জাহাজের খবর না রেখেও বলতে পারি, আগামী দিনে কি হবে তা কেউ বলতে পারবে না, বাঘের পিঠে চড়ে বসেছে, ফাঁদে পা দিয়ে ফেলেছে আমাদের দেশ ভারত, সঙ্গে আমরাও, এখন এর পিঠ থেকে নামা শক্ত। মৃত‍্যুর হার যেখানে মাত্র 2.5%, সাময়িক ঝিমোনো অর্থনীতির জন‍্য যাদের পকেটে মোটা অঙ্ক কিছু ঢুকছিলো না, মানুষকে ঘর বন্দি রেখে করোনা ব‍্যবসা করে নিলো তারা ।

আরও পড়ুনঃ প্রতীক্ষার অবসান, ১০ই আগস্ট করোনা ভ্যাকসিন বাজারে আনছে রাশিয়া।

তাই সচেতন হোন, গত চারমাসে আপনি যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন, তা মানুষকে জানান, পারলে বলুন, লিখতে না পারলে করোনা সংক্রান্ত কোনো ভালো লেখা বা ভিডিও শেয়ার করুন । নিজেকে প্রশ্ন করুন….. নিউজ চ‍্যানেলে করোনা সংক্রান্ত পজেটিভ খবর নেই কেনো? কেনো WHO সমানে নিজেদের বক্তব‍্য পাল্টাচ্ছে? সব রাজ‍্য চুপ কেনো? যখন কোনো ওষুধ নেই, তারপরেও প্রাইভেট হাসপাতাল গুলো লাখ লাখ টাকা বিল করছে অথচ রাষ্ট্র নীরব কেন? ভারত চীন সীমান্তে নিয়ে এই সময় গন্ডগোল কেন? কেন পৃথিবীর শক্তিধর দেশ গুলো হঠাৎ যুদ্ধ যুদ্ধ খেলায় মেতে উঠলো? এইরকম হাজারো প্রশ্ন আছে যারা দেশ চালাচ্ছেন, তাদের জানানোর সময় এসেছে, সাধারণ মানুষ ওদের অশুভ আঁতাত ও পরিকল্পনা ধরে ফেলেছে।

দীপাঞ্জন দাস (সংগৃহীত)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x