Swasthya Sathi : ফের স্বাস্থ্যসাথী ঘিরে জটিলতা, মামলা পৌঁছল হাইকোর্টে

নজরবন্দি ব্যুরোঃ দিনকয়েক আগেই রাজ্যের তরফ থেকে জারি করা হয়েছিল স্বাস্থ্যসাথী কার্ড কে গ্রহন করতে যদি কোন হাসপাতাল অস্বীকার করে তাহলে অবিলম্বে অভিযোগ জানানো যাবে বিশেষ হেল্পলাইন নম্বরে। ঠিক এমনই ব্যবস্থা চালু করা হয়েছিল নবান্নের তরফ থেকে। তবে এবার এই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের সুবিধা মানুষ কিভাবে পাচ্ছে তা জানতে বিশেষ নির্দেশিকা জারি কলকাতা হাইকোর্টের।

আর পড়ুনঃ বীর চক্র পুরস্কার পেলেন উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান

গত বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে সাধারন মানুষের সুবিধার্থে  স্বাস্থ্যসাথী কার্ড চালু করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সরকারি হাসপাতাল গুলিতে সেই কার্ড ব্যবহারের সুবিধা মিললে ও বহু বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোমে সেই কার্ড না নেওয়ার অভিযোগ উঠে এসে একাধিকবার।
এই সমস্ত বিষয় নিয়েই এবার কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন চিকিৎসক কুনাল সাহা। তিনি বলেন,  স্বাস্থ্যসাথী কার্ড এনে সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল গোটা রাজ্যের মানুষ কে এই সুবিধার আওতায় আনা হবে। কিন্তু কার্ড থাকা সত্ত্বেও দেখা যাচ্ছে রাজ্যের এক বিরাট অংশের মানুষ এই সুবিধা থেকে বঞ্ছিত হচ্ছেন। তাই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে পরিষেবা গ্রহণকারীর সংখ্যা বাড়লে বরাদ্দ হটাৎ করে কি করে কমতে শুরু করেছে সেটাই তিনি জানতে চান।

ফের স্বাস্থ্যসাথী ঘিরে জটিলতা, মামলা কলকাতা হাইকোর্টে

ফের স্বাস্থ্যসাথী ঘিরে জটিলতা, মামলা পৌঁছল হাইকোর্টে
ফের স্বাস্থ্যসাথী ঘিরে জটিলতা, মামলা পৌঁছল হাইকোর্টে
তিনি আরও বলেন, রাজ্য যতই বলুক মানুষ এর সুবিধা পাচ্ছে, বাস্তবে তা একেবারেই অন্যরকম। একটা বড় সংখ্যার মানুষকে স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড থাকা সত্ত্বেও পকেটের টাকা খরচা করেই চিকিৎসা করাতে হচ্ছে। অথচ রাজ্যের তরফ থেকে বলা হচ্ছে, প্রতি বছর ই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের মাধ্যমে চিকিৎসা প্রাপকের সংখ্যা বাড়ছে গোটা রাজ্যে। তাই সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখতেই আজ হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশ দেয় মহামান্য আদালত। পাশাপাশি কোনও রোগীর তরফে অভিযোগ এলে তার জন্য কী ব্যবস্থাই নেওয়া হচ্ছে তাও জানাতে বলা হয়।
ফের স্বাস্থ্যসাথী ঘিরে জটিলতা, মামলা পৌঁছল হাইকোর্টে
ফের স্বাস্থ্যসাথী ঘিরে জটিলতা, মামলা পৌঁছল হাইকোর্টে