কোভিড যোদ্ধার মৃত্যু হলে চাকরি পাবেন পরিবারের ১ জন। ঘোষনা মুখ্যমন্ত্রীর।

কোভিড যোদ্ধার মৃত্যু হলে চাকরি পাবেন পরিবারের ১ জন। ঘোষনা মুখ্যমন্ত্রীর।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ কোভিড যোদ্ধার মৃত্যু হলে চাকরি পাবেন পরিবারের ১ জন। রাজ্যে হুহু করে বাড়ছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। সংক্রমণের হাত থেকে নিস্তার পাচ্ছেন না কেউই। গত পরশু করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন রাজ্যের অন্যতম কোভিড যোদ্ধা দেবদত্তা রায়। এই প্রসঙ্গেই বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুনঃ করোনার দুর্বার গতি রাজ্যে আজ আক্রান্ত ১৫৮৯, মৃত বেড়ে ১০০০

উল্লেখ্য আজকের বুলেটিনে রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৮৯ জন! নতুন ১ হাজার ৫৮৯ জন আক্রান্ত কে নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৪ হাজার ৪২৭ জন।পাশাপাশি মৃত্যুমিছিলও অব্যাহত রয়েছে রাজ্যে। এদিনের বুলেটিনে রাজ্য সরকার জানিয়েছে সার্বিক ভাবে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু বেড়েছে আরও ২০ টি। যা নিয়ে রাজ্যে করোনা ভাইরাসে মৃত্যু সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০০০।

রাজ্যের এই বিপুল আক্রান্তের মধ্যে আছেন অনেক করোনা যোদ্ধাও। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন এখন পর্যন্ত রাজ্যে  ২৬৮ জন পুলিশকর্মী, ৩০ জন চিকিৎসক, ৪৩ জন নার্স এবং ২ জন সরকারি কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন মারন করোনা ভাইরাসে। মোট সংখ্যাটা হল ৪১৫ জন। যার মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪০৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের।

কোভিড যোদ্ধার মৃত্যু হলে চাকরি পাবেন পরিবারের ১ জন। এদিন মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন সর্বস্তরের করোনা যোদ্ধা অর্থাৎ তিনি আধিকারিক হোন বা সিভিক ভলেন্টিয়ার, কেউ যদি করোনা ভাইরাসের কারনে মারা যান তাহলে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে তাঁর পরিবারের একজন কে চাকরি দেওয়া হবে। এদিন মুখ্যমন্ত্রী ১৩ টি জেলা থেকে চিহ্নিত করা কোভিড যোদ্ধাদের প্রত্যেককে সাম্মানিক মেডেল ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

উল্লেখ্য মুখ্যমন্ত্রী আগেই ঘোষণা করেছিলেন কোন কোভিড যোদ্ধা মারা গেলে তাঁর পরিবার ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ পাবে এবং আক্রান্ত হলে পারে ১ লক্ষ টাকা। এদিন সেই ঘোষণার সাথে যুক্ত হল চাকরি এবং সাম্মানিক মেডেল ও সার্টিফিকেট। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *