বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শরীরে সাইটোকাইন স্টর্মের অস্তিত্ব, উদবিঘ্ন চিকিৎসকরা।

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শরীরে সাইটোকাইন স্টর্মের অস্তিত্ব, উদবিঘ্ন চিকিৎসকরা।
বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শরীরে সাইটোকাইন স্টর্মের অস্তিত্ব, উদবিঘ্ন চিকিৎসকরা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শরীরে সাইটোকাইন স্টর্মের অস্তিত্ব মিলল রিপোর্টে। যা নিয়ে উদ্বিগ্ন চিকিৎসকরা। মঙ্গলবার রাতেই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে রেমডেসিভির ইনজেকশন দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, টসিলিজুমাব ইনজেকশন দেওয়ারও পরিকল্পনা চলছে বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর। কয়েকদিন আগেই করোনায় আক্রান্ত হলেও তাঁর জেদের কাছে হেরে গিয়ে বাড়িতেই চিকিৎসা করানো হচ্ছিল প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর। তবে সোমবার রাত থেকেই শারীরিক অবস্থার অবনতি এবং গতকাল সকালে আচমকা অক্সিজেন লেভেল ৮০ তে নেমে যাওয়ায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে।

আরও পড়ুনঃ ‘আমিও বন্ধু, মনিব নই’, স্ত্রীর ছবি নিয়ে নিন্দুকদের এই ভাবেই উত্তর দিলেন ইরফান

করোনায় আক্রান্ত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী চিকিৎসাধীন রয়েছেন উডল্যান্ডস হাসপাতালের ৩১৩ নম্বর কেবিনে। তাঁর শরীরে সাইটোকাইন স্টর্মের আশঙ্কা করেছিল CPIM নেতৃত্ব। সেইমতো চিকিৎসকদের পরামর্শে প্রয়োজনীয় ILS-6 পরীক্ষাটি করা হয়। রিপোর্টে এই স্টর্মের ইঙ্গিত মিলেছে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, রিপোর্ট আসার সঙ্গে সঙ্গেই প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শুরু হয়েছে। এই মুহূর্তে তিনি বাইপ্যাপ অক্সিজেন সাপোর্টে রয়েছেন। তাঁর রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা ৯২ শতাংশ। হার্টরেট স্বাভাবিকের থেকে বেশ কিছুটা কম রয়েছে।

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শরীরে সাইটোকাইন স্টর্মের অস্তিত্ব মিলল রিপোর্টে। অন্যদিকে একই দিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন স্ত্রী মীরা দেবী। কয়েকদিন আগে কিছুটা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেও কাল বুদ্ধবাবুকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরেই ফের প্যানিক অ্যাটাক আসে মীরা দেবীর। ঝুঁকি না নিয়ে তাঁকেও তড়িঘড়ি ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। যে হাসপাতালে বুদ্ধবাবু ভর্তি আছেন সেখানেই তার পাশে ভর্তি আছেন মীরা দেবী।

তবে গতকাল রাত থেকেই কিছুটা ভালো আছেন বুদ্ধবাবু। তাঁর চিকিৎসার জন্য যে ৬ জনের মেডিক্যাল টিম গঠিত হয়েছে তাঁরা জানিয়েছিলেন সিওপিডির সমস্যা নতুন নয় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর। তবে করোনা কাল এবং ছত্রাক সংক্রমন সবদিক ভেবেই চিকিৎসা চলছে তাঁর। রাতের দিক থেকেই নিয়ন্ত্রণে আছে সুগার।

বাইপ্যাপের সাহায্যে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে তাঁকে। আজ সকালের খবর অনুযায়ী অক্সিজেন স্যাচুরেশন গতকালের থেকে বেড়েছে বেশ খানিকটা, ৮০ থেকে বেড়ে এখন ৯২। হার্টের গতি প্রতি মিনিটে ৫৬। খাবারও খেয়েছেন কাল রাতে। একটু ঝিমুনি ভাব থাকলেও জ্ঞান আছে, ডাকলে সাড়াও দিচ্ছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here