চাকরিতে স্থায়ী করনের দাবীতে হাতে থালা নিয়ে পথ অবরোধ!

চাকরিতে স্থায়ী করনের দাবীতে হাতে থালা নিয়ে পথ অবরোধ!

কুশল দাসগুপ্ত, জলপাইগুড়ি: চাকরিতে স্থায়ী করন করার দাবীতে হাতে থালা নিয়ে জলপাইগুড়িরের প্রান কেন্দ্রতে পথ অবরোধ করলো জেলা কলেজ ক্যাজুয়াল কর্মীরা। একই দাবীতে বিগত ১৭ দিন থেকে আনন্দ চন্দ কলেজের গেটের সামনে অনশন করছেন অস্থায়ী কলেজ কর্মীরা। অবরোধে প্রবল যানজটের সৃষ্টি হয়েছে জলপাইগুড়ি শহরে।

আরও পড়ুনঃ লক্ষ্মীপুজোয় লক্ষীলাভ! মধ্যবিত্তকে স্বস্তি দিয়ে সস্তা হল সোনা।

পশ্চিমবঙ্গ কলেজ ক্যাজুয়াল এমপ্লয়িজ সমিতির জলপাইগুড়ি জেলা শাখার কর্মীরা চাকরিতে স্থায়ী করন করার দাবীতে চলতি মাসের ১৩ তারিখ থেকে জলপাইগুড়ি আনন্দ চন্দ কলেজের গেটের সামনে অনশন শুরু করেছিলেন। জেলায় বহু ক্যাজুয়াল কর্মী দীর্ঘ প্রায় ২০-২৫ বছর থেকে অস্থায়ী কর্মী হিসেবে কাজ করছে। কলেজের ক্যাজুয়াল কর্মী ও কলেজে অতিথি শিক্ষক দের এক সাথে নিয়গ করা হয়েছিল, কিন্তু এই করোনা মহামারী মধ্যে কলেজের অতিথি শিক্ষকদের চাকরিতে স্থায়ী করা হলেও একই সাথে নিয়োগ হওয়া কলেজের ক্যাজুয়াল কর্মীদের চাকরিতে স্থায়ী করা হয়নি।

বিগত প্রায় পাঁচ বছর থেকে চাকরিতে অস্থায়ী থেকে স্থায়ী করার দাবীতে গোটা রাজ্যজুরে আন্দলোন শুরু করেছিল। রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর ও শিক্ষা মন্ত্রী বারংবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কথা রাখেনি৷ সেকারণেই বাধ্য হয়ে আজ হাতে থালা নিয়ে তাদের চাকরিতে স্থায়ী করার দাবীতে অনশনের পাশাপাশি শহর এলাকায় পথ অবরোধ শুরু করলো কলেজ ক্যাজুয়াল কর্মীরা।

এই আন্দোলনে সামিল হয়েছে জেলা ১০টি কলেজের অস্থায়ী কর্মীরা৷ পথ অবরোধ তুলতে জলপাইগুড়ি কোতয়ালী থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী কদমতলা মোড়ে মোতায়েন করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ কলেজ ক্যাজুয়াল এমপ্লয়িজ সমিতির জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি উত্তম সোম বলেন, আমাদের আন্দলন ছাড়া আর কিছু করার নেই। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী একাধিকবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কথা রাখেনি।

বিগত ১৭ দিন থেকে আমরা অনশন করছি সরকারি কোনো আধিকারিক আমাদের খোঁজ খবর নেয়নি। অনশন করতে গিয়ে অনেকেই অসুস্থ হয়েছে তাদের আমরা নিজেরাই হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে সুস্থ করে নিয়ে আসছি অথচ স্বাস্থ্য দপ্তর কোনো প্রকার খোঁজ খবর নেয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x