হেরে যাওয়ার ভয়েই নিজের ৭ বারের গড় ছেড়ে মেদিনীপুরে যাচ্ছেন মমতা: মুকুল

হেরে যাওয়ার ভয়েই নিজের ৭ বারের গড় ছেড়ে মেদিনীপুরে যাচ্ছেন মমতা: মুকুল

নজরবন্দি ব্যুরো: হেরে যাওয়ার ভয়েই নিজের ৭ বারের গড় ছেড়ে মেদিনীপুরে যাচ্ছেন মমতা, শুভেন্দু অধিকারী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়… এই দুই হেভিওয়েট মানুষের সভা মিছিলের সাক্ষী থাকলেন রাজ্যবাসী। এদিন তৃণমূল ও বিজেপির বিভিন্ন কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে জমে ওঠে রাজনৈতিক আঙিনা। এদিন শুভেন্দু অধিকারী তথা সংগ্রামের গড় নন্দীগ্রামে তৃণমূলের হাই ভোল্টেজ সভায় সুর চড়ান তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে মাস্টারস্টোক দেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, নন্দীগ্রাম আমার কাছে লাকি জায়গা। আসন্ন ভোটে আমিই যদি নন্দীগ্রামে দাড়াই কেমন হয়! তবে আমাকে তো ২৯৪টি আসনে লড়তে হবে।”

আরও পড়ুন: EXCLUSIVE: শুভেন্দুর মিছিলকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার, ছোঁড়া হল ইট

এদিকে তাঁর এহেন মন্তব্যের পরেই আসরে নামল বিজেপি। বিজেপির সর্ব ভারতীয় সহ সভাপতি বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পৃথিবীর যে কোনও প্রান্তে নির্বাচনে দাঁড়াতে পারেন। এক জায়গায় নির্বাচনে দাঁড়ালে হেরে যেতে পারেন, তাই উনি আর একটা জায়গা খুঁজছেন।’ উল্লেখ্য, আগামী ৩০ জানুয়ারি ঠাকুরনগরে সভা করতে আসবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর তার আগেই সোমবার ঠাকুরবাড়িতে আসেন মুকুল রায় , কৈলাশ বিজয়বর্গীয় ও সাংসদ শ্রী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো। এদিন দুপুরে ঠাকুরবাড়িতে এসে প্রথমে ঠাকুর হরিচাঁদ গুরুচাঁদের মন্দিরে যান। তারপর সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গে বৈঠক করেন বিজেপি নেতৃত্ব।

হেরে যাওয়ার ভয়েই নিজের ৭ বারের গড় ছেড়ে মেদিনীপুরে যাচ্ছেন মমতা, জানা গিয়েছে, এদিন ঠাকুরবাড়ি সংলগ্ন যে মাঠে অমিত শাহ আসবেন সেই মাঠ পরিদর্শন করেন তারা। পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের মুকুল রায় বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পৃথিবীর যে কোনও প্রান্তে নির্বাচনে দাঁড়াতে পারেন। এক জায়গায় নির্বাচনে দাঁড়ালে হেরে যেতে পারেন তাই উনি আর একটা জায়গা খুঁজছেন। পাশাপাশি তিনি বলেন, নন্দীগ্রাম সিঙ্গুর সব আন্দোলনেই তিনি ছিলেন আর কৃতিত্ব নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x