আডবানী-যোশী-ঊমার ভাগ্য নির্ধারণ। বাবরি ধ্বংস মামলার রায় ৩০ সেপ্টেম্বর।

আডবানী-যোশী-ঊমার ভাগ্য নির্ধারণ। বাবরি ধ্বংস মামলার রায় ৩০ সেপ্টেম্বর।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ আডবানী-যোশী-ঊমার ভাগ্য নির্ধারণ। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় ঘোষণা হবে। বিচারপতি এসকে যাদব সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে এই মামলার রায় দেবেন। ওই দিন অভিযুক্ত লালকৃষ্ণ আডবানী, মুরলী মনোহর যোশী-সহ ৩২ জনকে আদালতে হাজির থাকার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ৬ ডিসেম্বর ১৯৯২, অযোধ্যার বাবরি মসজিদ ভেঙ্গে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ মমতার দলে যোগ দিলেন আইনুল রেজাউলরা। শক্তিবৃদ্ধি তৃণমূলের।

তার পরে মসজিদ ধংসের ষড়যন্ত্র ও অন্যদের এই কাজে যুক্ত হওয়ার জন্য উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে মামলা রুজু করা হয়। এই মামলায় নাম জড়ায় বিজেপির একাধিক বর্ষীয়ান নেতার। লালকৃষ্ণ আদবানি, মুরলী মনোহর যোশীর সাথে বাবরি মসজিদ ধংস মামলায় অভিযুক্ত হিসাবে নাম জড়ায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উমা ভারতীর।

আডবানী-যোশী-ঊমার ভাগ্য নির্ধারণ। প্রায় ৩০ বছরের পুরনো বাবরি মসজিদ মামলার রায় ঘোষণা দিন অবশেষে সামনেই। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদের প্রক্রিয়া ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। জুলাই ২০১৯-এ শীর্ষ আদালত আগামী ৯ মাসের মধ্যে এই মামলার শেষ করার নির্দেশ দেয় সিবিআই বিশেষ আদালতকে। সেই নির্দেশ অনুযায়ী সিবিআই আদালত তৎপরতার সাথে কাজ শুরু করে।

কিন্তু এপ্রিল মাসেই সুপ্রিম কোর্ট থেকে দেওয়া সময়সীমা শেষ হয়ে গেছে। দেশজুড়ে করোনাভাইরাসের কারণে মামলা শেষ করার প্রক্রিয়ায় সময় লেগেছে বলে শীর্ষ আদালতে কাছে জানিয়েছিলেন সিবিআই কোর্টের বিচারপতি। তিনি সর্বোচ্চ আদালত কাছে মামলার রায় দানের জন্য আরও কিছু সময় দেওয়ার জন্য আর্জি জানিয়েছিলেন।

সিবিআই আদালতের বিচারপতি এসকে যাদবের আর্জি মেনেই বাবরি মসজিদ ধংস মামলার রায়দানের সময়সীমা বাড়ানো হয়। এবং আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর রায় দানের দিন নির্ধারিত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x