বিধি ভাঙছেন কৈলাস! নিরপেক্ষ পদক্ষেপের আশায় কমিশনের দ্বারে ফিরহাদ।

বিধি ভাঙছেন কৈলাস! নিরপেক্ষ পদক্ষেপের আশায় কমিশনের দ্বারে ফিরহাদ।
বিধি ভাঙছেন কৈলাস! নিরপেক্ষ পদক্ষেপের আশায় কমিশনের দ্বারে ফিরহাদ।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বিধি ভাঙছেন কৈলাস! আর তাতেই চটেছেন ফিরহাদ। বাংলায় ২১ এর ভোট উৎসবের নির্ঘন্ট প্রকাশ করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ২৭ সে মার্চ থেকে মোট ৮ দফায় ২৯সে এপ্রিল পর্যন্ত চলবে ভোট, এবং ২রা মে প্রকাশিত হবে ফলাফল। জানা যাবে এই দীর্ঘ লড়াইয়ে সকলকে পিছনে ফেলে কোন দল ক্ষমতা নিয়ে ঢুকবেন নবান্নে। গোটা রাজ্য জুড়ে নিশ্ছিদ্র পাহারায় ভোট পার করতে ইতমধ্যে আসতে শুরু করেছে কেন্দ্রীয় বাহিনি। আর ভোটের দিনক্ষণ প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গেই রাজ্যে জারি হয় একাধিক ‘প্রোটোকল’।

আরও পড়ুনঃ ধুন্ধুমার লাভপুর! মনিরুল ফিরতেই উদ্ধার বোমা, মারধোর TMC কর্মীকে।

এবাই সেই নিয়ম ভাঙার দায়ে বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীর বিরুদ্ধে সঠিক পদক্ষেপের আশায় কমিশনের দ্বারস্থ হলেন তৃণমূলের নেতা ফিরহাদ হাকিম। তাঁর মতে দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার পরেও বিজেপি নেতা বাউলদের ভাতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কৈলাস।তাই বিধি ভঙ্গের অভিযোগে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।

বিজেপির সকল নেতা মন্ত্রীরাই বার বার প্রচারে বলেছেন রাজ্যে দরকার সনাতন ধর্ম। রাজ্যের প্রয়োজন সংস্কৃতি শুদ্ধিকরন। আর সেই জন্যেই তাঁদের আওহান রাজ্যবাসীর কাছে এই নির্বাচনে বিজেপিকে জেতাতে।কাল, মঙ্গলবার শহিদ মিনার ময়দানে সারা ভারত কীর্তন, বাউল ও ভক্তিগীতি কল্যাণ ট্রাস্ট -এর সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। সেখানে তিনি ঘোষণা করেন এক হাজার জনের পেনশনের ব্যবস্থা করেছেন নরেন্দ্র মোদি। ১৪ মার্চ থেকে ৭০ বছরের বেশি বয়সী শিল্পীরা এই পেনশন পাবেন। এবং প্রতিশ্রুতিও দেন, বাংলায় বিজেপি সরকার ক্ষমতায় এলেই ষাটোর্ধ্ব বাকি শিল্পীরাও পেনশন পাবেন। বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী প্রথম ক্যাবিনেট বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত নেবেন।

বিধি ভাঙছেন কৈলাস! দিচ্ছেন প্রতিশ্রুতি। শুধু তাই নয় রাজ্যের শুদ্ধিকরণের স্বার্থে “আগামী দিনে যদি বাংলার গ্রামে গ্রামে কীর্তন, ভজন করতে হয় তবে বাংলায় বিজেপি সরকারকে আনতে হবে। তাই গ্রামের ঘরে ঘরে কীর্তন করে বলুন, হরে কৃষ্ণ, হরে হরে, কমল ফুল বিজেপি ঘরে ঘরে।” বলেও প্রচার করেন তিনি। কিন্তু নির্বাচনের দিন ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পর এভাবে সমাবেশ থেকে প্রতিশ্রুতি দেওয়া নির্বাচনের বিধি ভঙ্গ বলে মনে করছে তৃনমূল। এবং আজই এর জন্য কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছেন ফিরহাদ। তিনি জানিয়েছেন “এখন এভাবে প্রতিশ্রুতি দেওয়া যায়। বিজেপি নেতা যা করলেন তা অন্যায়। নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষভাবে পদক্ষেপ নেবে বলেই আশা রাখছি।” তবে খোদ কৈলাস এতে কোন ভুল খুঁজে পাচ্ছেন না। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন তিনি কনরকমের বিধি লঙ্ঘন করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here