আফগান নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক কেন্দ্রের, জানানো হল “অপারেশন নারীশক্তি” নিয়ে

আফগান নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক কেন্দ্রের, জানানো হল “অপারেশন নারীশক্তি” নিয়ে
আফগান নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক কেন্দ্রের, জানানো হল “অপারেশন নারীশক্তি” নিয়ে

নজরবন্দি ব্যুরোঃ আফগান নিয়ে আজ সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। সেখানেই আফগান ভূম নিয়ে পুঙ্খনাপুঙ্খ তথ্য, সিদ্ধান্ত আলোচনা করেন বিদেশমন্ত্রী। দিন কয়েক ধরেই চরম সংকট জনক পরিস্থিতি আফগানের।

আরও পড়ুনঃ নাছোড় মমতার নজর ত্রিপুরাতেই, ২৮শে ভার্চুয়াল ঝড়ের আভাস বিপ্লব গড়ে

২০ বছর পর ফের কাবুল দখল করেছে তালিবানরা। প্রাণের দায়ে দেশ ছাড়ছেন হাজার হাজার মানুষ। দেশে রয়ে গিয়েছেন যাঁরা, সেসিব মহিলাদের জন্য লম্বা ফতোয়া তালিকা জারি করেছে তালিবরা। সকলে তাকিয়ে ছিল এই পরিস্থিতিতে ভারতের অবসথান নিয়ে। দিন কয়েক আগেই নমোর ট্যুইট দেখে অনেকেই মনে করেছলেন এর মাধ্যমেই কেন্দ্রের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী।

আফগানিস্থানের বর্তমান পরিস্থিতি থেকে সেখানে আটকে থাকা ভারতীয়দের বিষয়ে সিদ্ধান্ত সেসব আলোচনার জন্য আজ সর্বদলীয় বৈঠক ডাকা হয়েছিল কেন্দ্রের তরফে। সেখানে উপস্থিত ছিল তৃণমূলও। বিদেশ মন্ত্রী সাফ জানান কথা দিয়ে কথা রাখেনি তালিবানরা।

আফগান নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক কেন্দ্রের, উপস্থিত তৃণমূলের সুধাংশুশেখর, সৌগত। 

আফগান নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক কেন্দ্রের, জানানো হল “অপারেশন নারীশক্তি” নিয়ে
আফগান নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক কেন্দ্রের, জানানো হল “অপারেশন নারীশক্তি” নিয়ে

সঙ্গে তিনি যোগ করেন পরিস্থিতি একেবারেই ভালো নয় আফগানিস্থানের। দেশের তরফে চেষ্টা করা হবে যত দ্রুত সম্ভব সে দেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের উদ্ধার করা হবে। বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জাননানো হয়েছে ১৫ তারিখ থেকে এখনো পর্যন্ত প্রায় ৮০০ জনকে আফগান থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে দেশে।

আফগান নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকে জয়শঙ্কর জানান এখনও অবধি প্রায় ১৫ হাজার ভারতীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন, অনেকের নাম ভারতীয় দূতাবাসে রেজিস্ট্রার না থাকার কারণে কিছুক্ষেত্রে সমস্যা হচ্ছে। আফগানিস্তান থেকে ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনার জন্য যে বিশেষ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে, তার নাম দেওয়া হয়েছে “অপারেশন নারীশক্তি”। কিভে কাজ হচ্ছে, কোন পদ্ধতিতে চালানো হচ্ছে উদ্ধার কার্য, বা চালানো হবে ভবিষ্যতেও সেই বিষয়ে দেশের সব দলকে অবগত করার জন্যই ডাকা হয়েছিল আজকের বৈঠক।

সঙ্গেই বিদেশমন্ত্রি জানিয়েছেন ২০২০ তে চুক্তি হওয়া দোহা ভঙ্গ করেছে তালিবরা। তবে যেহেতু সে দেশের একাধিক প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত ভারত তাই এই মুহুর্তে ইতিবাচক সম্পর্ক বজায় থাকবে বলে জানানো হয়েছে কন্দ্রের তরফে। সঙ্গেই জানানো হয়েছে পরিস্থিতি বিচার করে সিদ্ধনাত নেওয়া হবে পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here