ইয়াস পরবর্তী নিম্নচাপে হওয়া তুমুল বৃষ্টিতে জেলাগুলির সাথে ভাসল শহর কলকাতা।

ইয়াস পরবর্তী নিম্নচাপে হওয়া তুমুল বৃষ্টিতে জেলাগুলির সাথে ভাসল শহর কলকাতা।
ইয়াস পরবর্তী নিম্নচাপে হওয়া তুমুল বৃষ্টিতে জেলাগুলির সাথে ভাসল শহর কলকাতা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ইয়াস পরবর্তী নিম্নচাপে হওয়া তুমুল বৃষ্টিতে জেলাগুলির সাথে ভাসল শহর কলকাতা। ইয়াসের দাপটে চরম ক্ষতিগ্রস্ত ওড়িশা এবং রাজ্যের পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিন ২৪ পরগণা। বাকি জেলাগুলিতে সেরকম প্রভাব না পড়লেও ইয়াসের প্রভাবে গভীর নিম্নচাপ সৃষ্টি করে আজ বৃহস্পতিবার গোটা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস আগেই দিয়েছিল আবহাওয়া দপ্তর। সেইমত বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই আকাশের মুখ ভার।

আরও পড়ুনঃ ইয়াসে নদীবাঁধ ভাঙা নিয়ে কাঠগড়ায় শুভেন্দু-রাজীব, তদন্তের নির্দেশ ক্ষুব্ধ মমতার।

দফায় দফায় রাজ্যের জেলাগুলির সাথেই কলকাতা জুড়ে সকাল থেকেই শুরু হয়েছে ভারী বৃষ্টিপাত। যার সঙ্গী হয়েছে ঝোড়ো হাওয়া। যার দাপটে সকাল থেকেই উত্তাল প্রকৃতি। সকালের বৃষ্টির দাপট বেলা বাড়তেই আরও বারতে থাকে। দুপুর থেকে শুরু হয় অঝোরধারায় টানা বৃষ্টি। আর তাতেই জলমগ্ন হয়ে পরে শহর কলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকা। ইয়াস-এর প্রভাবে বুধবার কলকাতার কালীঘাট, চেতলা প্রভৃতি জায়গায় জল জমেছিল। সেই জল সরে গেলেও বৃহস্পতিবার ফের জল জমতে শুরু করে ওই এলাকাগুলিতে। এমনিতেই বৃহস্পতিবারও ভরা কোটাল রয়েছে।

তার ফলে জোয়ারের জল না নামা পর্যন্ত গঙ্গার লকগেট খোলা যাবে না বলেই পুরসভা সূত্রে খবর। তার মধ্যেই প্রবল বৃষ্টিতে কলকাতার একাধিক জায়গায় জল জমায় চরম ভোগান্তিতে পড়েন শহরবাসী। বৃহস্পতিবার দুপুর ২.০৩ মিনিটে গঙ্গার জলস্তর সর্বাধিক বৃদ্ধি পায়। যার ফলে কালীঘাট-চেতলা-টালিগঞ্জ এলাকার একাধিক এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। তার ওপরে একটানা বৃষ্টিতে জলমগ্ন হয়ে পড়ে শ্যামবাজার থেকে হাজরা।জলের তলায় চলে যায় কলেজ স্ট্রিট থেকে বালিগঞ্জ।

ইয়াস পরবর্তী নিম্নচাপে হওয়া তুমুল বৃষ্টিতে জেলাগুলির সাথে ভাসল শহর কলকাতা। কলকাতা পুরসভা আগেই জানিয়েছেল, সকাল ১১.৩০ থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত জল বাড়ার কারণে লকগেট বন্ধ থাকবে। লকগেট বন্ধ থাকাকালীন বৃষ্টি হলে জল জমতে পারে শহরের বিভিন্ন এলাকায়। এদিকে প্রবল বৃষ্টির জেরে গঙ্গার জলও বেড়েছে ভয়ঙ্করভাবে। রীতিমত ফুঁসছে নদী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here