মোদী-শাহের উপরেই প্রয়োগ করা উচিত মহামারী আইন, জানিয়ে দিলেন অভিষেক।

মোদী-শাহের উপরেই প্রয়োগ করা উচিত মহামারী আইন, জানিয়ে দিলেন অভিষেক।
মোদী-শাহের উপরেই প্রয়োগ করা উচিত মহামারী আইন, জানিয়ে দিলেন অভিষেক।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ মোদী-শাহের উপরেই প্রয়োগ করা উচিত মহামারী আইন, জানিয়ে দিলেন অভিষেক। বন্যাবিদ্ধস্ত দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনের সময় আলাপনকে নিয়ে কেন্দ্র রাজ্য সংঘাত থেকে মহামারী নিয়ন্ত্রনে কেন্দ্রের ভূমিকা একাধিক বিষয় নিয়ে মুখ খুললেন তৃণমূল যুবনেতা তথা ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ইয়াস-বিধ্বস্ত নদীবাঁধ ও দুর্গত এলাকার পরিস্থিতি দেখতে বুধবার দুপুরে পাথরপ্রতিমায় এসেছিলেন অভিষেক।

আরও পড়ুনঃ উত্তরপ্রদেশে দুর্ঘটনায় মৃত দুই শ্রমিক পরিবারকে নিজে হাতে অর্থ সাহায্য ফিরহাদের।

বুধবার দুপুর ১টা নাগাদ তিনি স্থানীয় দক্ষিণ মহেন্দ্রপুর শিবপ্রসাদ ভগবৎচন্দ্র হাইস্কুল মাঠে হেলিকপ্টার থেকে নামেন। সেখান থেকে যান দুর্গাচকে৷ সেখানকার ‘ফ্লাড সেন্টার’-এ শ’পাঁচেক দুর্গত মানুষের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। খতিয়ে দেখেন প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা। দুর্গতদের পাশে থাকার আশ্বাসও দেন অভিষেক। সেখানেই মোদী-শাহের প্রতি আক্রমন শানিয়ে তিনি বলেন ‘‘উনি বাংলার মানুষের জন্য কাজ করছিলেন। যিনি কাজ করছিলেন তাঁকে কেন শো-কজ! প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিপর্যয় মোকাবিলা আইন প্রয়োগ করা উচিত। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ওই আইন প্রয়োগ হোক।”

অভিষেক আরও বলেন, “নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেও ব্যাবস্থা নেওয়া উচিত। কমিশনের ব্যর্থতা। প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে ওই আইন প্রয়োগ হোক। দেশে যখন করোনার দ্বিতীয় ঢেউ, প্রতি দিন লাখ চারেক বলে মারা যাচ্ছেন, সকলকে বাড়িতে থাকার কথা বলা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী তখন এ রাজ্যে এসে সভা করছেন। আর বলছেন, এত বড় সভা কখনও দেখিনি। ওর বিরুদ্ধে আগে ওই আইন প্রয়োগ হওয়া উচিত।’’

পাশাপাশি দুর্গতদের সচেতন করে দিয়ে জানান “আপনাদের বাড়ি আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হলে ৫ হাজার টাকা এবং সম্পূর্ণ ক্ষতি হলে ২০ হাজার টাকা অর্থসাহায্য পাবেন। গবাদি পশু, পানের বরোজের ক্ষতি হলেও অর্থ সাহায্য মিলবে। মৎস্যজীবীরাও ক্ষতিপূরণ পাবেন। আমি অনুরোধ করব, সকলে এখানেই থাকুন। কেউ সাহায্য করুক বা না করুক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যত দিন রয়েছেন তত দিন কোনও চিন্তা করবেন না।” দুর্গাচকের ত্রাণ শিবির থেকে তৃণমূল সাংসদ যান রামগঙ্গা ঘাটে। সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী বঙ্কিম হাজরা, পাথরপ্রতিমা বিধায়ক সমীর জানাকে সঙ্গে নিয়ে লঞ্চে করে যান গোপালনগর এলাকায়।

মোদী-শাহের উপরেই প্রয়োগ করা উচিত মহামারী আইন, জানিয়ে দিলেন অভিষেক। যাওয়ার পথে লঞ্চে বসেই যাবতীয় ক্ষয়ক্ষতির খবর নেন তিনি। গোপাল নগর থেকে ফিরে এসে রামগঙ্গা ঘাট এলাকায় একটি বেসরকারী হোটেলে যান তিনি। সেখানে তৃণমূলের উদ্যোগে একটি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে। তিনি জানান, বাংলার মানুষ বাংলার সঙ্গে আছেন। তাই যে কোনও বিপর্যয় সাহসের সঙ্গে মোকাবিলা করে এই রাজ্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here