কথা রাখলেন বরিস জনসন, ব্রিটেন থেকে ৯০০ সিলিন্ডার উড়িয়ে আনল ভারতীয় বায়ুসেনা।

কথা রাখলেন বরিস জনসন, ব্রিটেন থেকে ৯০০ সিলিন্ডার উড়িয়ে আনল ভারতীয় বায়ুসেনা।
কথা রাখলেন বরিস জনসন, ব্রিটেন থেকে ৯০০ সিলিন্ডার উড়িয়ে আনল ভারতীয় বায়ুসেনা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ কথা রাখলেন বরিস জনসন, ব্রিটেন থেকে ৯০০ সিলিন্ডার উড়িয়ে আনল ভারতীয় বায়ুসেনা। করোনা মোকাবিলায় ভারতের দিকে বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিল বরিস জনসনের ইংল্যান্ড। ভারতীয় বায়ুসেনার বিশেষ বিমান ৯০০ টি অক্সিজেন ঠাসা সিলিন্ডার ভারতে পৌঁছল। তবে এ সাহায্যের শুরু। এরপর প্রয়োজনমত সমস্ত করোনা যুদ্ধের দ্রব্য ব্রিটেন থেকে এসে পৌঁছবে ভারতে।

আরও পড়ুনঃ লাগাতার মমতা বিরোধীতা, কঙ্গনার সাসপেন্ড অ্যাকাউন্ট করল খোদ টুইটার।

ব্রিটিশ অক্সিজেন কোম্পানি ভারতে পাঁচ হাজার অক্সিজেন সিলিন্ডার দেবে বলে জানা গিয়েছে। সোমবার ভারতে অক্সিজেন সিলিন্ডার সমৃদ্ধ ওই বিমান পৌঁছতেই এক ট্যুইট বার্তায় লন্ডনে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশন জানায় পাঁচ হাজার অক্সিজেন সিলিন্ডার ভারতকে উপহার দিচ্ছে ব্রিটিশ অক্সিজেন কোম্পানি। এরই প্রথম ব্যাচের ৯০০টি সিলিন্ডার ভারতীয় বায়ুসেনার মারফত পাঠানো হল দিল্লিতে। এছাড়াও রবিবার ব্রিটেনের তরফে জানানো হয় অতিরিক্ত ১০০০টি ভেন্টিলেটর ভারতীয় হাসপাতালগুলিতে পাঠানো হবে। প্রসঙ্গত

গত সপ্তাহে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে কথা হয় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই বৈঠকেই ভারতকে অক্সিজেন সিলিন্ডার, ভেন্টিলেটর দিয়ে সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছিলেন বরিস জনসন। তিনি বলেছিলেন ভারতকে ২০০টি ভেন্টিলেটর, ৪৯৫টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ও তিনটি অক্সিজেন জেনারেশন ইউনিট পাঠানো হবে। সেই বরাত ইতিমধ্যেই পৌঁছে গিয়েছে ভারতে।

ভারতীয় বায়ুসেনার সি-১৭ এয়ারক্রাফট সোমবার ব্রিটেন থেকে সিলিন্ডারগুলি নিয়ে আসে। এদিকে, সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গের জন্য যে সংকট দেশে তৈরি হয়েছে তা মোকাবিলা করার জন্য নৌবাহিনীর পদক্ষেপ নিয়ে পর্যালোচনা করেন। দীর্ঘ সময় ধরেই তিনি নৌবাহিনীর অ্যাডমিরাল করমবীর সিং-এর সঙ্গে বৈঠক করেন। মহামারি মোকাবিলার দেশবাসীকে সহযোগিতার জন্য বাহিনীর পক্ষ থেকে যেসব পদক্ষেপ নেওয়া তারই বিস্তারিত তথ্য প্রধানমন্ত্রীকে দেন করমবীর সিং।

কথা রাখলেন বরিস জনসন, ব্রিটেন থেকে ৯০০ সিলিন্ডার উড়িয়ে আনল ভারতীয় বায়ুসেনা। জানা গিয়েছে, ভারতীয় নৌবাহিনী সমস্ত রাজ্য প্রশাসনের কাছে পৌঁছে গেছে। হাসপাতাল,শয্যা, পরিবহন ভ্যাকসিন ড্রাইভ পরিচালনার ক্ষেত্র বাহিনীর জওয়ানরা সহযোগিতা করছে। বিভিন্ন শহরে সাধারণ নাগরিকদের ব্যবহারের জন্য নৌ হাসপাতালে শয্যা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন। খোলা হয়েছে নোভাল হাসপাতাল। করোনাভাইরাসের এই সংকট মোকাবিলা করার জন্য নৌবাহিনীর মেডিক্যাল কর্মীদের দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে পুনরায় নিয়োগের ব্যবস্থা হয়েছে। কোভিড হাসপাতালে মেডিক্যাল কর্মী বৃদ্ধির জন্য নৌ কর্মীদের ব্যাটল ফিল্ড নার্সদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here