সুন্দরবনের জন্য উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের, রোপন করা হবে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ

সুন্দরবনের জন্য উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের, রোপন করা হবে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ
সুন্দরবনের জন্য উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের, রোপন করা হবে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ

নজরবন্দি ব্যুরো: সুন্দরবনে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ চারা রোপন, উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের ।এবার বন দপ্তর নিজ উদ্যোগে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ চারা লাগাতে চলেছে। সে জন্য জেলা প্রশাসনের তরফে ১ হাজার ৯৪ হেক্টর খাস জমিও বরাদ্দ করা হয়েছে। বুলবুল, আমফান, ইয়াসের বিপর্যয়ের পরে সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ অরণ্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রীরা শিখিয়ে-পড়িয়ে নিন রাষ্ট্রমন্ত্রীদের, অধিবেশনের আগে নমো-মন্ত্র

আর তাই সেই ক্ষতি পূরণ করতে সুন্দরবন জুড়ে পাঁচ কোটির বেশি ম্যানগ্রোভ লাগাতে চলেছে রাজ্য বন দপ্তর। ইতিমধ্যেই একাধিক নার্সারিতে ছ’টি প্রজাতির ম্যানগ্রোভ চারা তৈরি করে সবুজায়নের প্রস্তুতি চলছে, জানিয়েছেন বন দপ্তরের আধিকারিকরা। সূত্রে খবর, গত বছর আমফানের পরবর্তী সময় গোটা সুন্দরবন সহ দুই জেলা জুড়ে ছোট এবং বড় মিলিয়ে প্রায় আড়াই কোটি গাছ নষ্ট হয়েছে।

সেই সময় ক্ষতিপূরণ করতে বেশ কয়েক কোটি গাছ লাগিয়েছিল রাজ্য বন দপ্তর। ঠিক তার পর পরই ধেয়ে এসেছে ইয়াস এবং পূর্ণিমার কোটাল। গোটা সুন্দরবন জলমগ্ন। ঘোরামারা দ্বীপ প্রায় জলের তলায়। তার ফলেই নষ্ট হয়ে হয়েছে ম্যানগ্রোভের। সেই সবুজের ঘাটতি মেটাতে দুই ২৪ পরগনার জেলা প্রশাসন এবং বন দপ্তর যৌথভাবে বৃক্ষরোপণের কাজ শুরু করেছে। রাজ্যের বন মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেছেন, আমফানের পরবর্তী সময় অনেক গাছ লাগানো হয়েছিল সুন্দরবনে। কিন্তু ইয়াসের প্রভাবে গাছগুলিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই এ বার প্রায় ৫ কোটির বেশি গাছ লাগানো হবে।

সুন্দরবনের জন্য উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের,জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে বরাদ্দ করা হয়েছে। ১ হাজার ৯৪ হেক্টর খাস জমিও

সুন্দরবনের জন্য উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের, রোপন করা হবে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ
সুন্দরবনের জন্য উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের, রোপন করা হবে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ

সেই জন্য জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে ১ হাজার ৯৪ হেক্টর খাস জমিও বরাদ্দ করা হয়েছে। এ ছাড়াও বাদাবনের ৫৬৫ হেক্টর জমিতে গাছ লাগানো হবে বলে জানানো হয়। সব মিলিয়ে প্রায় ১ হাজার ৯০২ হেক্টর জমিতে ম্যানগ্রোভ লাগানো হবে। সুন্দরবনে ৫ কোটি ম্যানগ্রোভ চারা রোপন , উদ্যোগ রাজ্য বন দপ্তরের। এ জন্য জেলার প্রায় ১৪টি নার্সারিতে দুই প্রজাতির বাইন, কাঁকড়া, ক্যাওড়া, খুলসি, গর্জন এবং গরান গাছের চারা তৈরির কাজ চলছে।

সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম থেকেই সাগর, নামখানা, কাকদ্বীপ, পাথরপ্রতিমা, রায়দিঘি, কুলতলি, বাসন্তী, গোসাবা-সহ দক্ষিণ ২৪ পরগনার ১১টি ব্লকে বৃক্ষরোপণ শুরু হওয়ার সম্ভাবনা। ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পের মাধ্যমে কর্মীদের নিয়োগ করে এই সব গাছ লাগানোর প্রস্তুতিও নেওয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here