ঘুরতে যাবার নাম করে ২৫ ছাত্রছাত্রী পাচার, আটক প্রধান শিক্ষক

ঘুরতে যাবার নাম করে ২৫ ছাত্রছাত্রী পাচার, আটক প্রধান শিক্ষক

নজরবন্দি ব্যুরোঃ রাতের ট্রেনে একদল কিশোর-কিশোরীকে নিয়ে কোথায় যাচ্ছেন? পাচারকারী সন্দেহে সরকারি স্কুলের প্রধানশিক্ষককে আটক করল রেল পুলিস। সঙ্গে মহিলা-সহ তাঁর ৩ সঙ্গীকেও। উদ্ধার করা হল ২৫ জন পড়ুয়াকে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল রায়গঞ্জে।

আরও পড়ুনঃ অবশেষে মেট্রোতে ফিরছে টোকেন, কি জানাচ্ছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ?

সমাজকর্মী কৌশিক চৌধুরী জানিয়েছেন, ‘১০-১২ জন কিশোর-কিশোরীকে সঙ্গে নিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন এক ভদ্রলোক। আমি জিজ্ঞাসা করলাম, এতগুলি বাচ্চা নিয়ে আপনি কোথায় যাচ্ছেন? বলল, আমার এক আত্মীয়ের বিয়ে আছে। সেখানেই যাচ্ছি’। তাহলে? ওই সমাজকর্মীর দাবি, ‘আমার সন্দেহ হওয়ায় নাম-পরিচয় ইত্যাদি জিজ্ঞাসা করি।

কোনও বাচ্চারই পরিচয় দিতে পারছিলেন না। জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির নাম মুজাহিদিন ইসলাম। তিনি দক্ষিণ দিনাজপুরের হরিরামপুরের মহেন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক। মুজাহিদিন ও তাঁর তিন সঙ্গীকে আটক করেছে রেল পুলিস। উদ্ধার করা হয়েছে ২১ কিশোর ও ৪ কিশোরীকেও।

চাইল্ড লাইনের এক আধিকারিকরা জানিয়েছেন, তারা কেউ একটি নির্দিষ্ট এলাকা বা গ্রামের বাসিন্দা নয়। বিভিন্ন গ্রামে তাদের বাড়ি। অভিযুক্ত প্রধানশিক্ষকের দাবি, ‘ঘোরার উদ্দেশ্যেই যাচ্ছিলাম সকলে মিলে। আমার মেয়ে বারাসত কলেজে পড়াশোনা করে। দেখার উদ্দেশ্যে সকলে মিলে যাচ্ছিলাম।

ঘুরতে যাবার নাম করে ২৫ ছাত্রছাত্রী পাচার, আটক প্রধান শিক্ষক

আর এক মেয়ের চিকিৎসার উদ্দেশ্যেও যাচ্ছিলাম’। এই কিশোর-কিশোরীর সঙ্গে আপনার কে হয়? প্রধানশিক্ষকের জবাব, ‘সম্পর্কে স্টুডেন্ট হয়। নিজের আত্মীয়ও আছে, ছেলে-মেয়েও আছে, ভাগ্নে আছে’। ঘটনার তদন্তে নেমেছে রায়গঞ্জের রেল পুলিস।