স্বচ্ছতার সাথে বিপুল নিয়োগের সিদ্ধান্ত SSC-র, মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপেই সমস্যার সমাধান?

৩৫ হাজার শিক্ষক এবং শিক্ষাকর্মীর পদ শূন্য, চলতি বছরেই নিয়োগ করবে রাজ্য।
eacher Recruitment in West Bengal to start soon says Education Minister

নজরবন্দি ব্যুরোঃ রাজ্যের অন্যতম বড় সমস্যা হল শিক্ষক নিয়োগ, এবং সেই নিয়োগে দুর্নীতি। অতঃপর মামলা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একাধিকবার শিক্ষক নিয়োগে সচেষ্ট হলেও নানাবিধ সমস্যার জেরে থমকে রয়েছে হাজার হাজার নিয়োগ। এই পরিস্থিতিতে সুখবর দিল রাজ্যের স্কুল সার্ভিস কমিশন। স্বচ্ছতার সাথে বিপুল নিয়োগের সিদ্ধান্ত SSC-র। প্রায় ১৫০০০ শিক্ষক নিয়োগ হতে চলেছে বলে খবর SSC সূত্রে।

আরো পড়ুনঃ আর নয় হাফ ডে, শনিবার পুরো স্কুল চালানোর ঘোষণা পর্ষদের

স্কুল সার্ভিস কমিশোনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন। নিয়োগ নিয়ে অচলাবস্থা কাটাতে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। কোনরকম বেনিয়ম এবং দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবেনা বলে জানিয়েছেন তিনি। তাঁর নির্দেশ মতই SSC সচেষ্ট হচ্ছে এমন ভাবে নিয়োগ করতে যাতে দুর্নীতির লেশমাত্র না থাকে। কারন নিয়োগে বেনিয়ম নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে শাসক দলের নেতা-বিধায়দেরও।

মঙ্গলবার শীতকালীন বিধানসভার অধিবেশনে পাথরপ্রতিমার তৃণমূল বিধায়ক সমীর জানা জানতে চান, এসএসসিতে শিক্ষক নিয়োগ কবে শুরু করবে রাজ্য সরকার। সেই সংক্রান্ত বিষয়ে জবাব দেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। প্রশ্নের জবাবে ব্রাত্য বলেন, “আদালতের জট কাটিয়ে আগামী দু’মাসে ১৫ হাজার নিয়োগ হবে এস এস সি-তে।” এর এদিন ব্রাত্য বলেছেন, “বর্তমানে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে এসএসসি-র (SSC)তরফে শিক্ষকদের অভিযোগ শোনা হচ্ছে। যার জন্য আমরা একটি বিশেষ সেল তৈরি করেছি।”

জানা গিয়েছে, নিয়োগের ক্ষেত্রে দ্রুত জটিলতা কাটানোর জন্য আইনজীবীদের কাছ থেকে পরামর্শও নিচ্ছে স্কুল সার্ভিস কমিশন। এ ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারকে মামলাকারীদের সমস্যা সমাধানের জন্য হাইকোর্ট তিন মাস সময় দিয়েছে।

আগামিবছরের শুরুতেই ফিরবে সুদিন, স্বচ্ছতার সাথে বিপুল নিয়োগের সিদ্ধান্ত SSC-র!

স্বচ্ছতার সাথে বিপুল নিয়োগের সিদ্ধান্ত SSC-র
স্বচ্ছতার সাথে বিপুল নিয়োগের সিদ্ধান্ত SSC-র

এদিকে কলকাতা হাই কোর্ট সূত্রে খবর, এই মুহুর্তে প্রায় ৫০০০ জন চাকরিপ্রার্থীর শুনানি পেন্ডিং রয়েছে। গত ৮ অক্টোবর পর্যন্ত মাত্র ১৩০০০ জন চাকরিপ্রার্থীর শুনানি হয়েছে। বাকি শুনানি এবং এই সংক্রান্ত বিভিন্ন মামলার নিস্পত্তি চলতি বছরের মধ্যেই শেষ করার জন্যে স্বচেষ্ট হয়েছে রাজ্য সরকার। আগামী বছরের শুরু থেকেই নতুন ভাবে দুর্নীতি মুক্ত শিক্ষক নিয়োগ করতে পারবেন বলে আশাবাদী SSC-র আধিকারিকরা।